চাঁদপুর, শুক্রবার, ১১ জুন ২০২১, ২৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ২৯ শাওয়াল ১৪৪২
ফনেটিক ইউনিজয়
সার্চ
¦

ব্রেকিং নিউজ

শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি’র একান্ত প্রচেষ্টায়
চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নির্মাণাধীন লিকুইড অক্সিজেন প্লান্টের কাজ শেষ পর্যায়ে

শেখ আল মামুন ॥

প্রকাশ : ১১ জুন, ২০২১

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডাঃ দীপু মনির প্রচেষ্টায় চাঁদপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতালের অভ্যন্তরে নির্মাণাধীন লিকুইড অক্সিজেন প্লান্টের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। আগামী জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে এটি চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এটি চালু হলে আইসিইউ এবং করোনা রোগীদের অক্সিজেন সাপোর্ট দেয়াসহ পুরো হাসপাতালটি (সকল ওটিসহ) অক্সিজেন প্লান্টের আওতায় চলে আসবে।
এ অক্সিজেন প্লান্ট থেকে জেলার চাহিদা মিটিয়ে আশেপাশের কয়েকটি জেলায়ও অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন যাবৎ কুমিল্লা থেকে চাহিদা অনুযায়ী অক্সিজেন সরবরাহ করে আসছে, এতে অতিরিক্ত সময় ও অর্থ ব্যয় হচ্ছে।
চাঁদপুরে বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সংকট দেখা দিলে বিপাকে পড়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। অক্সিজেন সংকটের বিষয়টি স্থানীয় সাংসদ শিক্ষামন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: দীপু মনি এমপিকে অবহিত করলে তিনি দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা করে দেন।
হাসপাতালটিতে অক্সিজেন সমস্যার স্থায়ী সমাধানের লক্ষে ডাঃ দীপু মনি এমপি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করে হাসপাতাল অঙ্গনে স্থায়ীভাবে অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের উদ্যোগ নেন। যেটির কাজ এখন শেষ পর্যায়ে।
নির্মাণাধীন অক্সিজেন প্লান্টের ধারণক্ষমতা ৫১ লাখ ৬০ হাজার মিলি লিটার। ট্যাঙ্কটি বসানোর কাজে অর্থায়ন করছে ইউনাইটেড ন্যাশন ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন্স ইমার্জেন্সি ফান্ড (ইউনিসেফ) এবং বাস্তবায়ন করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।
গত ২ মাস পূর্বে এ প্লান্ট বা ট্যাঙ্ক বসানোর জন্য অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করে। হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীদের জন্যে অক্সিজেন সরবরাহের সকল জায়গায় অক্সিজেন সংযোগ লাইন বসানোর কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে।
অক্সিজেন প্ল্যান্ট নির্মাণের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী কামাল হোসেন জানান, ৫১ লাখ ৬০ হাজার মিলি লিটারের ধারণ ক্ষমতার লিকুইড অক্সিজেন ট্যাঙ্ক বসানোর অবকাঠামো এটি। মূল প্লান্টটি হচ্ছে ৬ হাজার লিটারের, এটি যখন অক্সিজেনে রূপান্তর হয়, তখন ৫১ লাখ ৬০ হাজার মিলি লিটারে রূপান্তর হবে। আমরা দৃশ্যমান যে ভবনটি করেছি, এতেই আমাদের কাজ শেষ হয়ে যায়নি। হাসপাতালে রোগীদের প্রয়োজনে যে সকল রুমে অক্সিজেন সাপোর্ট লাগবে, সে সকল রুমের সংযোগ কাজ (সকল ওটি রুমসহ) আমরা প্রায় ৯০ ভাগ শেষ করেছি।
তিনি বলেন, আমরা যেদিন হস্তান্তর করবো, ঐদিন থেকেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এটি চালু করতে পারবে। তাই সবমিলিয়ে জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহের যেকোনো দিন এটি চালু হওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ। হাসপাতালের আরএমও ডাঃ সুজাউদ্দৌলা রুবেল এ বিষয়ে জানান, চাঁদপুরবাসী সত্যি সৌভাগ্যবান। যা ছিলো স্বপ্ন, তা বাস্তবায়নের অপেক্ষায়। সত্যি কথা বলতে কী, এটি সম্ভব হয়েছে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায়।
তিনি বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কাজটি সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্যে আমাদের পক্ষ থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। এটি চালু হলে একদিকে সময়, অন্যদিকে অর্থ সংকোচন হবে। লিকুইড প্লান্টটি চালু হলে আমাদের জেলার বর্তমান চাহিদা পূরণ করে ৪-৫ মাসের অক্সিজেন মওজুদ থাকবে। এছাড়াও এখান থেকে অন্য জেলায় অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হবে।
উল্লেখ্য, বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতি ১ম ধাপের শুরুতে চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্তদের অক্সিজেনের সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করলে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সংযোজনের ব্যবস্থার পাশাপাশি এটি স্থাপনের ব্যবস্থা করে দেন। তিনি করোনা আক্রান্ত রোগীদের প্রথমে ২৫ বেড পরবর্তীতে ৩০ বেডের আইসোলেশন বিভাগের ব্যবস্থা করেন। করোনা শনাক্তকরণে সমস্যা সমাধানের জন্যে নিজস্ব অর্থায়নে তিনি এবং তাঁর ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের মাধ্যমে চাঁদপুরে স্থাপন করেন কোভিড-১৯ শনাক্তকরণ পরীক্ষাগার (আরটিপিসিআর ল্যাব)। ইতিমধ্যে ৩টি আইসিইউও বেড অনুমোদনের ব্যবস্থা করেন। সর্বশেষ অক্সিজেন প্লান্ট স্থায়ীভাবে বসানোর মাধ্যমে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল পিক চিকিৎসাসেবায় আরো বহুগুণ এগিয়ে গেলো।
 
প্রথম পাতা পাতার আরো খবর

উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতিঃ ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু, প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশকঃ- মোঃ সেলিম খান, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ- শহীদ পাটোয়ারী, যুগ্ম সম্পাদকঃ- জাহিদুল ইসলাম রোমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালকঃ- কাজী মিজানুর রহমান, ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ- মোহাম্মদ আলী মাঝি কর্তৃক ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন, চাঁদপুর থেকে প্রকাশিত এবং সিরাজ অফসেট প্রেস, কলেজ গেইট, চাঁদপুর থেকে মুদ্রিত। কার্যালয়ঃ- খান সুপার মার্কেট (২য় তলা), ঘোষপাড়া ব্রীজের পশ্চিমে, মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী সড়ক, চাঁদপুর-৩৬০০। মোবাইল- ০১৭১২-২০৫৭৪৭।