মঙ্গলবার ১৭ এপ্রিল ২০১৮। ৪ বৈশাখ ১৪২৫। ২৯ রজব ১৪৩৯
ফনেটিক ইউনিজয়
সার্চ
¦

ব্রেকিং নিউজ

  • মুফতি হান্নানসহ তিনজনের ফাঁসি কার্যকর
সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হায়দার পারভেজ সুজনের সাংবাদিক সম্মেলন
আমি ওই প্রার্থীর মতো নই, যিনি নির্বাচন আসলে মাথায় টুপি পড়ে ব্যবসায়ীদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়ান

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল, ২০১৮

হাজীগঞ্জ পৌর যুবলীগের দু’বারের সফল আহবায়ক ও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির বর্তমান সফল সাধারন সম্পাদক মো. হায়দার পারভেজ সুজন সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। গতকাল ১৬ এপ্রিল সোমবার বিকেলে হাজীগঞ্জ বাজারের ফুলেল সুপার মার্কেটের ৩য়তলা এই সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেন।
            তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, আমি ওই প্রার্থীর মতো নই, যিনি সমিতির নির্বাচন আসলেই মাথায় টুপি পড়ে ব্যবসায়ী ও সদস্যদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ঘুরে বেড়ান। আর নির্বাচন শেষ হয়ে গেলে ওই প্রার্থীর সাথে ব্যবসায়ী বা সদস্যদের কোন ধরনের সম্পর্ক থাকেনা। এমনকি একজন সদস্য বা ব্যবসায়ীর মৃত্যুবরণ এবং কাহারো দোকানে চুরি, ডাকাতিসহ নানান সমস্যায় পড়লেও থাকে দেখা যায়নি। সে সাথে বাজারের কোন দোকানে আগুন লাগলেও এই প্রার্থীকে কোন ব্যবসায়ী দেখেছে কিংবা ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীকে শান্তনা দিয়েছেন এমন নজির নেই। তিনি কেবল নির্বাচন আসলে প্রার্থী হন। আবার নির্বাচন চলে গেলে লাপাত্তা হয়ে যান। আমার প্রশ্ন তিনি কি নির্বাচনমূখী লোক? না ব্যবসায়ী বান্ধন লোক। আমি যখন সমিতির দায়িত্বে ছিলামনা তখনো ব্যবসায়ীদের সুখ এবং দুঃখের সঙ্গী ছিলাম। নির্বাচিত হয়েও তাদের সাথে ছিলাম। ভবিষ্যতেও তাদের সাথে থাকার প্রতিজ্ঞা করছি। তাই ব্যবসায়ী এবং সদস্যদের প্রতি আহবান জানিয়ে অনুরোধ রাখছি আপনার এমন প্রার্থীকে সবাই চিনে রাখবেন।
            তিনি আরো বলেন, আমি ২০১৫ সালে সমিতির দায়িত্ব গ্রহনের পর নগদ অর্থ (সমিতির ফান্ডে) পেয়েছি সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা। আর দায়িত্বেকালীন সময়ে সমিতির ক্যাশ করেছি ১৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ সাড়ে ৯ লাখ টাকা আমার দায়িত্ব থাকাকালীন উন্নতি করেছি। যা অতীতের কোন সাধারণ সম্পাদক করতে ব্যর্থ হয়েছে। আগামী ২৫ এপ্রিল নির্বাচনে যদি পুনরায় সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হতে পারি তাহলে ব্যবসায়ী সমিতির একটি অত্যাধুনিক বহুতল ভবন বাস্তবায়ন করবো, ইনশাল্লাহ এবং আমি নির্বাচিত হওয়ার পরপরই আমার প্রথম কাজ হবে বাজারের প্রতিটি অলিগলিতে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা। আর এই সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে আমার নিজ অর্থায়নে।
            পশ্চিম বাজারস্থ ফুলেল সুপার মার্কেটের ৩য়তলায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে প্রেসক্লাবের সভাপতি মুন্সী মোহাম্মদ মনিরের সভাপতিত্বে সমিতির সাধারন সম্পাদক প্রার্থী হায়দার পারভেজ সুজন আরো বলেন, ২০১৫ সালের ২৮ মে নির্বাচিত হওয়ার পর লিখিত ভাবে ১৬৫ টি দেন-দরবারের সমাধান করেছি। আর অলিখিত শালিসের কোন হিসাব নেই। এতে করে আগের মত দিনের পর দিন মালিক-ভাড়াটিয়ার দ্বন্ধে দোকান ঘরে তালা পড়ে থাকতে হয়নি। যে কারনে যে কোন সময় আমাকে ব্যবসায়ীরা কাছে পাওয়ার জন্য ব্যবসায়ী সমিতির পাশে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছি। আমি সব সময় রাতের বেলায় বাজারের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ব্যবসায়ীদের খোঁজ খবর নিয়ে আসছি। বিশেষ করে রমজান মাসে রাত ১২টা পর্যন্ত যে সকল মুদি ও কাপড়ের দোকানগুলো খোলা থাকে তাদের খোঁজ খবর নিয়ে নিরাপত্তা জোরদারের ব্যবস্থা গ্রহন করেছি। কেউ কোন দিন বলতে পারবে না যে আমি কাজের বিনিময় বা ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের নেতা হিসেবে আধিপত্য বিস্তার করে কাহারো কাছ থেকে দু’ টাকা নিয়েছি বা গ্রহন করেছি। আমি সব সময় ব্যবসায়ীদের পাশে থেকে সেবা করার প্রত্যয়ে কাজ করে আসছি এবং এটি করে থাকবো।
            বিশেষ মুহুর্তে যেমন বাজারে চুরি, ডাকাতি, দূর্ঘটনায় কেউ বলতে পারবে না তিনি ব্যবসায়ীদের পাশে ছিল। থাকবে বা কি করে যে কিনা অবৈধ ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মাসের পর মাস গাঁ ডাকা দিয়ে থাকেন সে কি করে ব্যবসায়ীদের স্বার্থ নিয়ে প্রশাসনের সামনে গিয়ে কথা বলবেন। আমি জানি ব্যবসায়ীরা তাদের ভোট সঠিক স্থানে প্রয়োগ করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। সর্বশেষ আমি হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে ছাতা মার্কায় ভোট চাই এবং দলমত নির্বিশেষে ব্যবসায়ীদের পক্ষে কাজ করার জন্য পুনরায় সুযোগ চাই।
            ওই সময় পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মিলনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।
শেষের পাতা পাতার আরো খবর

সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটোয়ারী, উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি : ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু, প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশক : মোঃ সেলিম খান, প্রধান সম্পাদক: রাশেদ হোসেন চৌধুরী (রনি), সম্পাদক : আলহাজ্ব অ্যাডঃ জসিম উদ্দিন পাটোয়ারী, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : শহীদ পাটোয়ারী, যুগ্ম সম্পাদক : জাহিদুল ইসলাম রোমান, নির্বাহী সম্পাদক : শাহ্ আলম মল্লিক, বার্তা সম্পাদক : গোলাম মোস্তফা, যুগ্ম বার্তা সম্পাদক : মানিক দাস, সহ-সম্পাদক শেখ আল মামুন, চীফ ফটোগ্রাফার ও রিপোর্টার : মুহাম্মদ আলমগীর, মফস্বল সম্পাদক : এস এম মহসিন, বিজ্ঞাপন ম্যানেজার : মোঃ ফারুক হোসেন ভূঁইয়া। প্রকাশক কর্তৃক ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন, চাঁদপুর থেকে প্রকাশিত এবং সিরাজ অফসেট, কলেজ গেইট, চাঁদপুর থেকে মুদ্রিত। কার্যালয় : খান সুপার মার্কেট (নিচ তলা), ঘোষপাড়া ব্রিজের পশ্চিমে, মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী সড়ক, চাঁদপুর-৩৬০০। যোগাযোগ : ০১৭১২২০৫৭৪৭।