সোমবার ১৬ এপ্রিল ২০১৮। ৩ বৈশাখ ১৪২৫। ২৮ রজব ১৪৩৯
ফনেটিক ইউনিজয়
সার্চ
¦

ব্রেকিং নিউজ

  • মুফতি হান্নানসহ তিনজনের ফাঁসি কার্যকর
উৎসব মুখর পরিবেশে চাঁদপুরে বর্ষবরণ উদযাপিত
আমাদেরকে অসাম্প্রদায়িক সকল চেতনাকে দূরে ঠেলে সামনে এগিয়ে যেতে হবে
ডাঃ দীপু মনি এমপি * আমরা চাই সুন্দর ও সুশৃঙ্খল একটি জাতি : জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান

শেখ আল মামুন

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল, ২০১৮

 ওই নতুনের কেতন উড়ে/ কাল বৈশাখীর ঝড়/ তোরা সব জয়ধ্বনি কর’ পুরানো দিনের জরাজীর্ণতাকে ঝেরে ফেলে জীবনের নতুন সম্ভাবনা ও নতুন প্রত্যাশা কামনা করে প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও চাঁদপুরে প্রাণের উচ্ছ্বাসে ও উৎসবমুখর পরিবেশে বৈশাখী উৎসব উদ্যাপিত হয়েছে। পহেলা বৈশাখ (১৪ এপ্রিল) শনিবার সকাল ৯টায় চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বৈশাখী বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্দেশ্যে সমবেত হয়। চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন ও চাঁদপুর পৌরসভার আয়োজনে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রার শুভ সূচনা করেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। মঙ্গল শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে ডাকাতিয়া সোপান, ডাকাতিয়া নদীর উন্মুক্ত তীর ভূমিতে বৈশাখী উৎসব স্থলে এসে শেষ হয়। দিন ব্যাপী বৈশাখী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি। এ সময় তিনি বলেন, আমরা সবাই একত্রিত হয়েছি নতুন বছরকে বরণ করতে। আমাদের দেশে ৪টি ধর্মের মানুষ বসবাস করে, বিশ্ব তা জানে। পাশ্চাত্যের সবস্থানে ইসলাম ধর্ম রয়েছে। আমাদের চিন্তা-চেতনা, সাহিত্য সব কিছু পাশ্চাত্যের সংস্কৃতি রয়েছে। আর সেই জন্য আমরা সকল ধর্মের মানুষ  এক  সাথে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান উদ্যাপন করছি। ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র  সবার, এই কথাকে বিশ্বাস করে আমরা সবাই আনন্দ উৎসব করে থাকি। কোন ধর্মে মারামারি হানাহানির কথা নেই। তবে একটি কুচক্রি মহল আমাদের সংস্কৃতি ও  মানুষের মধ্যে হানাহানি সৃষ্টি করে। সব ধর্মই শান্তির কথা বলা হয়েছে। আমাদের সমাজে যারা জাতি, ধর্ম বর্ণ ও সংস্কৃতিতে মারামারি হানাহানিতে সৃষ্টি করছে তারা দেশ ও  জাতির জঘন্যতম মানুষ। আমাদের নতুন বছরের সামনের দিনগুলো যেনো সুখে শান্তিতে কাটাতে পারি সেই কামনাই করছি। আমাদের সমাজ থেকে সকল অন্যায় দূর হয়ে আমরা যেন সকলে অন্যায় ্এড়িয়ে চলি। মেঘনার বুকে ভেসে চাঁদপুরে আসার পথে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে ফেসবুকে আমি নতুন বছরকে নিয়ে কিছু লেখা লিখেছিলাম। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা স্বপ্ন পূরণ করার জন্য শেখ হাসিনা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আমাদেরকে অসম্প্রদায়িক সকল চেতনাকে দূরে ঠেলে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। তবে জাতির পিতা স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হবে। 
সূচনা বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান বলেন, শুরুতেই সবাইকে জানাচ্ছি শুভেচ্ছা। সবার মনেই রয়েছে দেশপ্রেম। আমরা দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হয়ে আজকে রঙিন পোষাক পড়ে বর্ষবরণের মাধ্যমে নিজেকে রাঙ্গিয়ে তুলেছি। আমরা চাই সুন্দর  সুশৃঙ্খল একটি জাতি। সংস্কৃতিক সংগঠনগুলো চাঁদপুরে অনেক প্রশংসার দাবিদার। 
এ সময় বৈশাখী শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার পিপিএম, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটওয়ারী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল। এছাড়া শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূইয়া প্রমুখ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট চাঁদপুর জেলার সভাপতি তপন সরকার ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডঃ বদিউজ্জামান কিরন। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক শহীদ পাটোয়ারী।
উদ্বোধনী পর্ব শেষে প্রথম দিনের প্রথম পর্বে ধারাবাহিকভাবে সঙ্গীত, নৃত্য পরিবেশন করে চাঁদপুরের সঙ্গীত নিকেতন, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ, তারুণ্য সাংস্কৃতিক সংগঠন, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী চাঁপদুর জেলা সংসদ, আনন্দ ধ্বনি সঙ্গীত শিক্ষায়তন, পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি পুনাক, সপ্তরূপা নৃত্য শিক্ষালয় ও জেলা শিল্পকলা একাডেমী।  
উল্লেখ্য, দীর্ঘ বছর পর এবছরও ১৪ এপ্রিল সরকারি পহেলা বৈশাখ পালিত হয়েছে। সে কারণে পহেলা বৈশাখ চাঁদপুর শহর ছিলো উৎসবের নগরী। প্রেসক্লাব সংলগ্ন ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে বৈশাখী উৎসবস্থলে লোকে লোকারণ্য ছিলো। পুলিশি নিরাপত্তার কারণে বিকেল ৪টায় সরকারি নির্দেশনা মত  বৈশাখী উৎসবের স্থল, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গলিয়া ও  বড় স্টেশনের কাবাডি প্রতিযোগিতা শেষে বিকেল ৪টার মধ্যে দর্শনার্থীদের স্থান ত্যাগ  করতে হয়েছে।
প্রথম পাতা পাতার আরো খবর

সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটোয়ারী, উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি : ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু, প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশক : মোঃ সেলিম খান, প্রধান সম্পাদক: রাশেদ হোসেন চৌধুরী (রনি), সম্পাদক : আলহাজ্ব অ্যাডঃ জসিম উদ্দিন পাটোয়ারী, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : শহীদ পাটোয়ারী, যুগ্ম সম্পাদক : জাহিদুল ইসলাম রোমান, নির্বাহী সম্পাদক : শাহ্ আলম মল্লিক, বার্তা সম্পাদক : গোলাম মোস্তফা, যুগ্ম বার্তা সম্পাদক : মানিক দাস, সহ-সম্পাদক শেখ আল মামুন, চীফ ফটোগ্রাফার ও রিপোর্টার : মুহাম্মদ আলমগীর, মফস্বল সম্পাদক : এস এম মহসিন, বিজ্ঞাপন ম্যানেজার : মোঃ ফারুক হোসেন ভূঁইয়া। প্রকাশক কর্তৃক ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন, চাঁদপুর থেকে প্রকাশিত এবং সিরাজ অফসেট, কলেজ গেইট, চাঁদপুর থেকে মুদ্রিত। কার্যালয় : খান সুপার মার্কেট (নিচ তলা), ঘোষপাড়া ব্রিজের পশ্চিমে, মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী সড়ক, চাঁদপুর-৩৬০০। যোগাযোগ : ০১৭১২২০৫৭৪৭।