মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮। ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৯
ফনেটিক ইউনিজয়
সার্চ
¦

ব্রেকিং নিউজ

  • মুফতি হান্নানসহ তিনজনের ফাঁসি কার্যকর
পালবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে অর্ধশতাধিক দোকান পুড়ে ছাই

শেখ আল মামুন/মুহাম্মদ আলমগীর

প্রকাশ : ১৩ মার্চ, ২০১৮

চাঁদপুর শহরের অতি পুরানো বাণিজ্যকেন্দ্র (অন্নদাচরণ বাজার) বর্তমান পালবাজার হিসেবে পরিচিত চাঁদপুরের সবচেয়ে বড় কাঁচাবাজারটি ভয়াবহ অগ্নিকা-ে অর্ধশাতাধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এই বাজারটি অধিকাংশ ব্যবসায়ী বিভিন্ন ব্যাংক ও সমিতি থেকে লোন এনে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসছিল। গতকাল ১২ মার্চ সোমবার ভোর রাত সাড়ে চারটায় মুদি ব্যবসায়ী বাসু ছৈয়ালের দোকানে সার্টসার্কিট থেকে আগুণের সূত্রপাত থেকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। আকস্মিক অগ্নিকান্ডে বাজারের পেছনের অংশের প্রায় ছোট-বড় ৪০টি দোকানের মালামালসহ পুড়ে গেছে। ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১০ কোটি টাকা হবে বলে জানিয়েছেন বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতা মিজান হাওলাদার, মনিরুল ইসলাম ও মধুসূদন পোদ্দার। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সালামত খার মুদি দোকানের গুদাম ঘর, বোরহান বেপারী, মিজান জমাদার, মুকবুল,শাহজান গোলদার, আহম্মদ উল্লা, কামরুলের মুদি দোকান, মুরগী ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম গাজী, হাবীবুর রহমান, আরশাদ, আল-আমিন বয়লার হাউস, আমিন মাতাব্বরের ডিমের দোকান, হাসানের কাঁচামাল, হারুন পাটওয়ারীর মুদি দোকান, মোক্তার, সিরাজুল ইসলাম, মুনির জমাদার, মিজানুর রহমান, নান্নুর গাজী, ফরিদ জমাদার, বাসু ছৈয়াল, হাবিবুর রহমান, রফিক জমাদার, মান্নানের দোকান, শাহাদাত হালদারের দোকান, শামছুল হক পাটওয়ারীর দোকান, হাবিব গাজীর দোকান ও সফিক গাজীর দোকান সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এই অগ্নিকান্ডে সকল ব্যবসায়ীর পণ্য সামগ্রী পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
    বাজারের দোকানী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, তারা প্রথমে বাসু ছৈয়ালের দোকানে ধোয়া দেখতে পায়। কিছুক্ষন পর আগুনের লেলিহান শিখা দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে। পথচারীদের আগুন আগুন চিৎকারে আশপাশের মানুষের ঘুম ভেঙ্গে যায় এবং দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে এসে দোকানের মালামাল রক্ষার আপ্রাণ চেষ্টা করে। এসময় বাজারে মুরগী ড্রেসিং এর দোকানগুলোতে রাখা গ্যাসের সিলিন্ডার আগুন লাগার পর বিকট শব্দে বিষ্ফোরণ ঘটে। খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই সঙ্গীয় সদস্যদের নিয়ে ভোর রাত পৌনে ৬ টায় বাজারে প্রবেশ করে। তারাও আগুন নেভানো ও ক্ষতিগ্রস্থদের মালামাল রক্ষার চেষ্টা করে। সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে আগুন নিভাতে ছুটে আসে চাঁদপুর শহরের ফায়ার স্টেশনের দু'টি ইউনিট। এই সাথে পুরাণবাজারের আরো দু’টি ইউনিটকে তড়িৎ গতিতে আনা হয়। ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ২ ঘণ্টা চেষ্টার সকাল সাড়ে ৮ টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ততক্ষণে পালবাজারের ব্যবসায়ীদের ব্যাপক ক্ষতি হয়ে যায়। চাঁদপুর উত্তর ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মোঃ ফারুক আহমেদ জানান, সকাল সোয়া ৬ টায় আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসি। ১০ মিনিটের মধ্যেই আমরা আমাদের কাজ শুরু করি। নতুন বাজার ও পুরাণবাজারের ৪টি ইউনিট যৌথভাবে পালবাজারের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ২ ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিভাতে সক্ষম হই। তবে ক্ষতির পরিমাণ এখনো সঠিক ভাবে নির্ণয় করা যায়নি।
    এদিকে চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ নাছির উদ্দিন আহমেদ পালবাজার অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার খবর জানতে পেরে সকাল ১০টায় বাজার পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের খোঁজ-খবর নেন এবং তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রতিশ্রুতি দেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শওকত ওচমান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলালসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
    ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা জানান, রোববার দিনভর বিক্রি শেষে বিকেলের পর আমরা আমাদের দোকানগুলোতে বিক্রির উদ্দেশ্যে মালামাল তুলেছিলাম। সেই মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আমরা যারা ব্যবসায়ী রয়েছি। বিভিন্ন ব্যাংক ও সমিতি থেকে লোন এনে আমাদের ব্যবসা পরিচালনা করে থাকি। এই অগ্নিকান্ডে আমাদের যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা কাটিয়ে উঠতে অনেক দিন সময় লেগে যাবে।
 
প্রথম পাতা পাতার আরো খবর

Notice: Use of undefined constant mysql_error - assumed 'mysql_error' in /home/chandpur/public_html/condb.inc.php on line 3
ERROR while connect: mysql_error